নাজুক পরিস্থিতিতে খুলনার কাঁচা চামড়ার ব্যবসা


অস্তিত্ব সংকটে রয়েছে খুলনার কাঁচা চামড়ার ব্যবসা। নির্ধারিত স্থান না থাকা, পুঁজি সংকট আর ট্যানারি মালিকদের কাছ থেকে বকেয়া টাকা না পাওয়ায় তৈরি হয়েছে এ নাজুক অবস্থা। এতে করে চামড়া পাচারকারী চক্র সক্রিয় হয়ে ওঠার আশঙ্কাও করছেন ব্যবসায়ীরা।

বছর দশেক আগেও শেখপাড়া চামড়া পট্টিতে প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ছিল শতাধিক। কমতে কমতে গেলো বছর, সেইসংখ্যা দাড়ায় ১২টিতে। আর এখন কোনো রকমে টিকে আছে দুটি।

পরিবেশের ক্ষতি হচ্ছে এমন অজুহাত তুলে, চামড়া ব্যবসায়ীদের প্রতিষ্ঠান সরিয়ে নিতে বলেন দোকান মালিকরা। পাশপাশি দেনার বোঝাতো রয়েছেই। এমন বাস্তবতায় এবারের কোরবানির ঈদে চামড়া সংগ্রহ ও সংরক্ষণ ব্যাহত হওয়ার শঙ্কায় ব্যবসায়ীরা।

চামড়া সংগ্রহ ও সংরক্ষণের পাশাপাশি মৌসুমী ব্যবসায়ীদের দৌরাত্ম্য ও পাচারের আশঙ্কাও রয়েছে ব্যবসায়ীদের। তবে চামড়া পাচার ঠেকানো ও অসাধু ব্যবসায়ীদের ব্যাপারে বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে দাবি প্রশাসনের।

প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের হিসেব অনুযায়ী, খুলনায় খামারিদের কাছে কোরবানিযোগ্য পশু রয়েছে ৫৭ হাজার। আর চাহিদা প্রায় এক লাখ। তাই এবার জেলার মানুষকে র্নিভর করতে হবে আশপাশের জেলা থেকে আসা পশুর ওপরই।





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *