সহজ ভাষায় – টেকটিউনস কী? | Techtunes


টেকটিউনস – http://www.techtunes.co – বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির বাংলা সৌশ্‌ল নেটওয়ার্ক। টেকটিউনস একটি উন্মুক্ত সৌশ্‌ল নেটওয়ার্ক। টেকটিউনসে যে কেউ রেজিস্ট্রেশন করে ‘টিউনার আইডি’ Open করতে পারে এবং তার নিজেস্ব ‘টিউনার প্রোফাইল’ তৈরি করতে পারে ও তার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির উন্নত মানের কন্টেন্ট তৈরির মাধ্যমে নলেজ শেয়ার করতে পারে এবং কমিউনিটির অন্যান্য মেম্বারদের সাথে টেকটিউনসের বিভিন্ন সৌশল নেটওয়ার্কিং টুলের এর মাধ্যমে সৌশল নেটওয়ার্কিং ও কমিউনিকেশন করতে পারে।

টেকটিউনসে টিউনারা হাই কোয়ালিটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি কন্টেন্ট তৈরির মাধ্যমে কমিউনিটিতে ইনফ্লুয়েন্স তৈরি করে এবং নিজেস্ব ফলোয়ার বৃদ্ধি করে ও টিউনের ‘টিউন র‌্যাংক’ বৃদ্ধি করে। যে টিউনারের যত বেশি ফলোয়ার এবং যে টিউনারের টিউন যত বেশি জোসস পায় সে টিউনগুলো তত বেশি ‘টিউন র‌্যাংক’ পায়। যে টিউনগুলো যত বেশি ‘টিউন র‌্যাংক’ পায় সে টিউনগুলো তত বেশি টিউজার, টিউডার ও টিউজিটরদের কাছে Reach করে এবং বেশি ‘টিউন ভিউ’ পায়।

টেকটিউনস – বাংলাদেশের Most Visited ও Biggest সৌশল নেটওয়ার্ক। টেকটিউনস পৃথিবীর ২৩০ টি দেশে থেকে নিয়মিত ভিজিট হয় এবং এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয়, সর্ববৃহৎ ও সুবিশাল কমিউনিটির বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির বাংলা সৌশল নেটওয়ার্ক এবং টেকটিউনস এর সাথে পৃথিবীর প্রায় ৪ কোটি People Connected.

গত ১০ বছরে টেকটিউনস বাংলাদেশের ইন্টারনেট ইন্ড্রাস্ট্রিতে নিয়ে এসেছে এক যুগান্তকারি পরিবর্তন। অসংখ্য আইটি পেশাজীবি, ফ্রিল্যান্সার, কর্পোরেট ইউজার, নবীণ কম্পিউটার ব্যবহারকারি, সাধারণ পাঠক থেকে শুরু করে এডভান্স ইউজারদের বিশাল এক মিলন মেলা টেকটিউনস।

http://www.techtunes.com.bd/

বিশ্বের প্রায় ২৩০ টি দেশে প্রায় ৪ কোটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি প্রেমী সরাসরি যুক্ত টেকটিউনসের সাথে। শুধু বাংলা ভাষা ভাষীই নয় টেকটিউনস ট্রান্সটেল করে বিশ্বের বহু ভিন ভাষীও টেকটিউনস ব্যবহার করে নিয়মিত। দেশের লক্ষ লক্ষ আইটি পেশাজীবি, ফ্রিল্যান্সার, ডিজাইনার, কোডার, ডেভলোপার, প্রকৌশলী এর হাতে খড়ি হয় টেকটিউনস থেকে-ই। টেকটিউনস বাংলাদেশের প্রকৃত ডিজিটাল বিপ্লব এর পথিকৃত। বাংলা ভাষার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি চর্চার বিশ্বের সবচেয়ে একটিভ ও বিশ্বস্ত কমিউনিটি এর নাম টেকটিউনস।

প্রতিনিয়ত অগিণত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি প্রেমীরা জড়ো হয় টেকটিউনসের এই প্রযুক্তির শহরে। বর্তমানে ৪ কোটির অধিক প্রযুক্তি প্রেমী নিবিড় ভাবে জড়িত টেকটিউনসের এই প্রযুক্তির বলয়ে। সে অনুযায়ী টেকটিউনস – http://www.techtunes.co বিশ্বের #১ নম্বর বাংলা সৌশ‌্ল‌ নেটওয়ার্ক।

টেকটিউনস – Techtunes কমিউনিটি বিশ্বের সবচেয়ে বড় বিজ্ঞানও প্রযুক্তির বাংলা কমিউনিটি। টেকটিউনস সৃষ্টি করেছে সারা বিশ্বের বাংলা ভাষাভাষীদের কাছে প্রযুক্তির এক উন্মুক্ত দ্বার। প্রায় ১০ বছরের বেশি সময় ধরে টেকটিউনস হয়েছে প্রযুক্তিপ্রেমী মানুষের এক অনন্য ঠিকানা।

টেকটিউনস বাংলা ভাষায় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি চর্চায় বিশ্বে এক নিরব বিপ্লব তৈরি করছে। টেকটিউনস থেকে প্রতিনিয়ত তৈরি হচ্ছে লাখো ফ্রিল্যান্সার, আইসিটি পেশাজীবি, আইটি অভিজ্ঞ এবং Greeks & Nerds. টেকটিউনসের কমিউনিটি আজ শুধু বিশ্বের সর্ববৃহৎ বাংলা সৌশল নেটওয়ার্কই নয় বরং বিশ্বে বাংলাভাষায় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেধাবীদের এক আর্কাইভ।

টেকটিউনস পরিভাষা

http://www.techtunes.com.bd/

টেকটিউনসের একজন মেম্বারকে বলা হয় ‘টিউনার’ ও তার তৈরি কন্টেন্টকে বলা হয় ‘টিউন’ বহুবচনে টিউনস (একসাথে একাধিক টিউনস)। টিউনে মন্তব্যকারি বা কমেন্টরকে বলা হয় ‘টিউমেন্টর’। টিউমেন্টরের মন্তব্য বা টিউমেন্ট কে বলা হয় ‘টিউমেন্ট’ ও বহুবচনে ‘টিউমেন্টস’ (একসাথে একাধিক টিউমেন্স)।

টিউন পাঠককে বলা হয় ‘টিউন রিডার’ বা ‘টিউডার’। টেকটিউনসের একজন ইউজারকে বলা হয় ‘টিউজার’, টিউনারের ইউজার আইডিকে বলা হয় ‘টিউনার আইডি’ টেকটিউনসের একজন ভিজিটরকে বলা হয় ‘টিউজিটর’।

টেকটিউনসের রয়েছে এরকম আরো পরিভাষা। টেকটিউনসের সকল পরিভাষা সম্পর্কে জানা যাবে ‘টেকটিউনস সজিপ্র’ থেকে।

টেকটিউনস একটি ফুল ফিচার্ড সৌশল নেটওয়ার্ক

http://www.techtunes.com.bd/

টেকটিউনস যেহেতু একটি টেকনোলজি সৌশল নেটওয়ার্ক, সৌশ্‌ল নেটওয়ার্কের সকল ফিচার টেকটিউনসে রয়েছে।

  • টেকটিউনসের টিউনার তার পছন্দের টিউনারকে ফলো করতে পারে ও নিজের ফলোয়ার তৈরি করতে পারে।
  • অন্য টিউনারকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠাতে পারে।
  • নিজে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট একসেপ্ট ও রিজেক্ট করতে পারে।
  • নিজেস্ব প্রোফাইল পিকচার সেট করতে পারে, নিজেস্ব টিউনার প্রোফাইলের কভার ফটো সেট করতে পারে।
  • টেকটিউনসের নিজেস্ব ম্যাসেজিং সিস্টেম ‘টেকটিউনস ম্যাসেঞ্জার’ এর মাধ্যমে অন্য টিউনারদের সাথে ম্যাসেজ আদান প্রদানের মাধ্যমে টিউজারদের সাথে কমিউনিকেশন করতে পারে।
  • যে কোন টিউনে ও টিউমেন্টে জোসস Reaction দিতে পারে এবং কারা কারা জোসস Reaction দিয়েছে তা দেখতে পারে।
  • যে কোন টিউন, টিউমেন্ট, টিউনার, চেইন টিউন টেকটিউনসের ‘One Click Share’ এর মাধ্যমে বিভিন্ন সৌশল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারে।
  • টিউনে মন্তব্য বা টিউমেন্ট বা টিউমেন্ট করতে পারে, টিউমেন্টের প্রতুত্তর ‘রিপ্লাই টিউমেন্ট দিতে পারে’।
  • নিজেস্ব ‘টিউন স্ক্রিন’ (হোম পেইজের টিউন ফিড/টিউন ওয়াল) ফিল্টার করে শুধু মাত্র Follow করা (Following টিউনার) টিউনাদের টিউন বা Follower দের টিউন দেখতে পারে।
  • কোন টিউমেন্টর তার টিউনে টিউমেন্ট করলে অথবা রিপ্লাই টিউমেন্ট করলে, ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠালে, Follow করলে ইত্যাদি সকল ধরনের নোটিফিকেশন, টেকটিউনসের সেন্ট্রাল নোটিফিকেশন সেন্টারের মাধ্যমে পেতে পারে ও ম্যানেজ করতে পারে।

টিউনার ডিরেক্টরি

টেকটিউনসে রয়েছে টেকটিউনস ‘টিউনার ডিরেক্টরি’ যা টেকটিউনসের সকল টেকটিউনসারদের বা টিউনারদের লিস্ট। টেকটিউনস ‘টিউনার ডিরেক্টরি’ তে টেকটিউনসের সকল টিউনার এর প্রোফাইল ব্রাউজ করা যায়, পছন্দের টিউনাদের ফলো করা যায় এবং ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠানো যায়।

টেকটিউনসে রয়েছে ভিডিও টিউন, অডিও টিউন, স্ট্যাটাস টিউন, লিংক টিউন ও ফটো টিউন করা ফিচার

http://www.techtunes.com.bd/

টেকটিউনসে টিউনার লিখিত আকারে নলেজ শেয়ার করার পাশাপাশি টেকটিউনসে সরাসরি ভিডিও আপলোড করে ‘ভিডিও টিউন’, অডিও আপলোড করে ‘অডিও টিউন’, লিংক শেয়ার করে ‘লিংক টিউন’, স্ট্যাটাস আপলোড করে স্ট্যাটস টিউন ও ফটো শেয়ার করে ‘ফটো টিউন’ প্রকাশ করে নলেজ শেয়ারিং করতে পারে।

টেকটিউনসে ভিডিও টিউনকে বলা হয় vUne (ভিউন), অডিও টিউনকে বলা হয় aUne (এউন), স্ট্যাটাস টিউনকে বলা হয় স্টিউন (stUne), লিংক টিউনকে বলা হয় liUne (লিউন) এবং ফটো টিউনকে বলা হয় phUne (ফিউন)

টেকটিউনস চেইন টিউন

টেকটিউনসের টিউনার তার কন্টেন্ট গুলোকে পর্বভিত্তিক, ধারাবাহিক, সিরিজ, এপিসোর্ড আকারে ধারাবাহিক ভাবে অথবা কোর্স আকারে প্রকাশ করতে পারে যাকে বলা হয় ‘টেকটিউনস চেইন টিউন’। একজন চেইন টিউনকারিকে বলা হয় ‘টেকটিউনস চেইন টিউনার’।

টেকটিউনস চেইন কিভাবে প্রক্রিয়া হয় তা জানা যাবে ‘টেকটিউনস সজিপ্র’ এর চেইন টিউন অংশে ও টেকটিউনস চেইন টিউনের গাইডলাইন সম্পর্কে জানা যাবে টেকটিউনস চেইন টিউন গাইডলাইনে

টেকটিউনস জ্যাকেট

http://www.techtunes.com.bd/

টেকটিউনসে রয়েছে ‘টেকটিউনস জ্যাকেট’ ফিচার যেখানে যে কেউ তার বিজ্ঞান, প্রযুক্তি ও আইটি সংক্রান্ত সমস্যা নিয়ে প্রশ্ন করতে পারে ও টেকটিউনস কমিউনিটি মেম্বাররা উত্তর দিয়ে তার সামাধান ও সাহায্য করতে পারে।

কমিউনিটি মেম্বারদের মধ্যে যারা উত্তর দিতে ও সমস্যার সমাধান করতে এক্সপার্ট তাদেরকে বলা হয়ে ‘টেকটিউনস জ্যাকেটার’

টেকটিউনস ডেস্ক

টেকটিউনস প্ল্যাটফর্ম ও কমিউনিটি সাপোর্ট এর জন্য রয়েছে ‘টেকটিউনস ডেস্ক’। টেকটিউনস প্ল্যাটফর্ম সম্পর্কে যে কোন প্রশ্ন যেমন কিভাবে টিউন করতে হয়, কিভাবে কোয়ালিটি টিউন করবে, কিভাবে টেকটিউনসে ভিডিও টিউন করবে, কিভাবে টেকটিউনসে অডিও টিউন করবে ইত্যাদি নিয়ে যে কোন ধরনের সমস্যা টেকটিউনস কমিউনিট মেম্বাররা টেকটিউনস ডেস্কে জানাতে পারে এবং টেকটিউনস ডেস্কের অফিসিয়াল সাপোর্ট পেতে পারে ও টেকটিউনস কমিউনিটি এক্সপার্টরাও ‘টেকটিউনস ডেস্কে’ উত্তর দিয়ে সাহায্য করতে পারে।

টেকটিউনস এডভার্টাইজিং Techtunes Advertising – tAds

http://www.techtunes.com.bd/

যেহেতু টেকটিউনস অত্যন্ত জনপ্রিয় ও সুবিশাল কমিউনিটির একটি নেটওয়ার্ক তাই দেশে-বিদেশের অসংখ্য দেশী, আর্ন্তজাতিক ও বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানের Top Company, Organization, Institute ও Brand গুলো টেকটিউনস এর সাথে নিয়মিত Advertisement ও Branding করে থাকে। এসব কোম্পানি তাদের ডিজিটাল ব্র্যান্ডিং করে থাকে টেকটিউনস এর সুবিশাল এই প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে।

শুধু বাংলাদেশেই নয় টেকটিউনসে এর কাস্টমার বেইস সারা বিশ্বেই ছড়িয়ে আছে। এসব আর্ন্তজাতিক ও বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান নিয়মিত ডিজিটাল ব্র্যান্ডিং ও মার্কেটিং করে টেকটিউনস এর সাথে। উল্লেখযোগ্য দেশ গুলো হচ্ছে USA, UK, India, China, Malaysia, Singapore এবং আরও অনেক।

টেকটিউনস প্রতি মাসে প্রায় ৭ কোটি এড ইমপ্রেশন সার্ভ করে।

Techtunes tAds Control Panel

টেকটিউনসে এডভার্টাইজমেন্ট করার জন্য টেকটিউনসে রয়েছে আধুনিক tAds Control Panel.  tAds Control Panel এ নূন্যতম পরিমাণ টাকা লোড বা জমা করে  CPI (Cost Per Impression), CPC (Cost Per Click), CPA (Cost Per Action) ভিত্তিতে টেকটিউনসে ‘ব্যানার এডভার্টাইজমেন্ট’ ও ‘স্পন্সরড টিউন এডভার্টাইজমেন্ট’ করা যায়।

tAds Control Panel লগইন করে ব্যানার এডের ইমেজ ও ব্যানার এডের লিংক Unlimited বার Upload করে ব্যানার চেঞ্জ করা য়ায় ও ব্যানার লিংক চেঞ্জ করা যায় যতবার খুশি ততবার। অর্থাৎ এডের সকল কন্টেন্ট, এড ইমেইজ, এড লিংক সকল কিছু নিজ থেকে ম্যানেজ করা, চেঞ্জ করা যায় আনলিমিটেড ভাবে। আর যেহেতু টেকটিউনস এডভার্টাইজমেন্ট সম্পূর্ণ ডিজিটাল এডভার্টাইমেন্ট তাই tAds Control Panel থেকে AD এর পারফরমেন্স Live দেখা যায় ও Measure করা যায় অনায়েসে।

tAds Control Panel থেকে AD এর Performance অর্থাৎ কত ক্লিক হচ্ছে, কত Ad Impression হচ্ছে তা Live Dashboard এর মাধ্যমে দেখা যায় এবং সেই সাথে দিন ভিত্তিক, সপ্তাহ ভিত্তিক ও মাস ভিত্তিক, কত ক্লিক এবং ইমপ্রেশন রয়েছে তা নিজের মত করে ফিল্টার করে দেখা যায় ও প্রয়োজনীয় রিপোর্ট জেনারেট করা যায়।

টেকটিউনসে বিজ্ঞাপণ কিনতে টেকটিউনসের এই ফর্মটি পূরণ এর মাধ্যমে নির্দিষ্ট পরিমাণ ক্রেডিট tAds Control Panel এ লোড বা জমা করা যায় ও tAds Control Panel Access পাওয়া যায়।

টিউনটি শেয়ার করুন এবং অন্যদের টেকটিউনস সম্বন্ধে সহজ ভাষায় জানান।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *