হাসপাতালে শিশুকে স্তন্যপান করালেন পুলিশ কর্মকর্তা, ছবি ভাইরাল


প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ১৯, ২০১৮ , ৮:৫৩ অপরাহ্ণ | আপডেট: আগস্ট ১৯, ২০১৮, ৮:৫৩ অপরাহ্ণ

অস্ট্রেলিয়ার পার্লামেন্টে গত বছর এক অধিবেশন চলার সময়ে সিনেটর ল্যারিসা ওয়াটার্স তার দুমাসের মেয়েকে স্তন্যপান করিয়ে শিরোনামে এসেছিলেন। কিছুদিন আগেও মায়ামির ক্যাটওয়াকে মেয়েকে স্তন্যপান করাতে করাতেই এগিয়ে যান মার্কিন মডেল মারা মার্টিন। এবার আর্জেন্টিনার এক হাসপাতালে যা হয়েছে তা যেন একেবারেই চিন্তার বাইরে।

গত মঙ্গলবার ডিউটির সময় অপুষ্ট ও গায়ে ময়লা মাখা বিপন্ন এক শিশুকে স্তন্যদান করে আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন এক নারী পুলিশ অফিসার। আর সেই মুহূর্তের একটি ছবি ইতিমধ্যেই সামাজিকযোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ভাইরাল হয়েছে।

ডেইলি মেইলের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মঙ্গলবার সেলেস্টা বুয়েনস আইরেসের এক হাসপাতালে ডিউটি করছিলেন। এ সময় আচমকা ওই শিশুটিকে কেউ হাসপাতালে নিয়ে আসেন। বাচ্চাটি খুব কাঁদছিল সেই সময়। কান্না দেখে সেলেস্টা হাসপাতালের চিকিৎসকদের কাছে অনুরোধ করেন বাচ্চাটিকে আগলে দুধ খাওয়ানোর জন্য। কিন্তু হাসপাতালের কর্মীরা এতটাই ব্যস্ত ছিলেন যে, তারা সেই বাচ্চাটিকে সেখানেই ফেলে রেখে দেন। সেলেস্টা সেই সময় শিশুটিকে কোলে নেন এবং স্তন্যপান করিয়ে শিশুটির কান্না থামান।

সেলেস্টা স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে বলেন, ‘আমি খেয়াল করে দেখলাম শিশুটি ক্ষুধায় কান্না করছিল। সে বার বার মুখে হাত দিচ্ছিলো। পরে আমি তাকে কোলে নিই এবং স্তন্যপান করাই।’

পরিস্থিতিটি খুবই বেদনাদায়ক ছিল বলেও জানান ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

সেলেস্টা আয়ালার এমন পদক্ষেপ ক্যামেরাবন্দি করে ফেসবুকে পোস্ট করেন তার সহকর্মী মারকোস হেরেদিয়া। মার্কোস তার ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, হাসপাতাল কর্মীরা শিশুটিকে ‘নোংরা’ বলে ধরতেও চায়নি।

ছবিটি ফেসবুকে পোস্ট হতেই তা ভাইরাল হয়ে যায়। প্রায় দেড় লাখ লাইক ও এক লাখ শেয়ার হয়েছে।
স্থানীয় মিডিয়া সূত্রে জানা যায়, শিশুটি একজন সিঙ্গল মাদারের ষষ্ঠ ও কনিষ্ঠতম সন্তান। তবে হাসপাতালে কে নিয়ে এসেছে তা জানা যায়নি।





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *